বুর্জ খলিফায় ৭ রাত যাদের সঙ্গে কাটিয়েছেন পরীমনি

সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে প্রায়ই দেখা যেত পাত্র-পাত্রীর অবস্থানের ছবি। ইতিমধ্যেই জানা গেছে যে কনে তুহিন সিদ্দিকী আমিরের ফ্ল্যাটে 16 দিন ধরে অবস্থান করছেন। আমিরের বাড়ি ছাড়াও পরীমনি দুবাইয়ের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ‘বুর্জ আল খলিফা’ টাওয়ারের হোটেল আরমানিতে অবস্থান করছিলেন।

 

টানা days দিন অভিনেত্রী একটি অভিজাত হোটেলে ‘অ্যাম্বাসেডর স্যুট’ -এ অবস্থান করেন। এই অ্যাম্বাসেডর স্যুটের ভাড়া গণনা করতে হতো প্রতিদিন এক লাখ ৫ thousand হাজার টাকা। জানা গেছে, বুর্জ আল খলিফা পরিদর্শনের সময় নগদ ১৫ লাখ রুপি নিয়েছিলেন।

সূত্র বলছে, ২ari এপ্রিল থেকে দুবাই সফরে দেশটির একটি ব্যাংকের চেয়ারম্যানের সঙ্গে পরীও ছিলেন। পরীমনির ব্যক্তিগত সহকারী আশরাফুল ইসলাম ওরফে দিপু ছিলেন তাদের নিত্যসঙ্গী। দীপু ভিজিটের ব্যবস্থা করেন।

আমিরের সাথে আড্ডা দেওয়া এবং সময় কাটানো ছাড়াও পরীমনি দুবাই গিয়েছিলেন অনেকের সাথে দেখা করতে। দুবাই ও ভ্রমণের টিকিটের সমস্ত খরচ অমি বহন করে। শুধু আমিই নন, তিনি বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের সঙ্গে দেশ -বিদেশ ঘুরে বেড়াতেন। পরে সে টাকা দিয়ে তাদের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিত।

পরীমনি নামে Dhakaাকায় আসা শামসুন্নাহার চলচ্চিত্রে আগ্রহী ছিলেন না। তিনি মফসবল থেকে Dhakaাকায় এসে মডেলিং এবং টিভি নাটক করছেন। প্রথমে তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাবে রাজি না হলেও পরে তিনি তার দাদার সাথে চুক্তিবদ্ধ হন। প্রথম সিনেমা ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ মুক্তির আগে কমপক্ষে ২০ টি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হন এবং তিনি রাতারাতি তারকা হয়ে যান।

বুধবার বিকেলে রAB্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে রAB্যাবের গোয়েন্দা দলের সদস্যরা পরীমনির বনানীর বাড়িতে অভিযান চালায়। চার ঘণ্টার অভিযানের পর রাত 8 টার দিকে তাকে গ্রেফতার করে রAB্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। রAB্যাব জানায়, তার বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক জব্দ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *